গাবতলী পার হতে পারছে না মোটরসাইকেলও

 

রাজধানীর গাবতলীতে পুলিশের সঙ্গে শ্রমিকদের কয়েক দফায় সংঘর্ষের পর এখন সেখানে থমথমে পরিস্থিতি বিরাজ করছে। যাত্রীবাহী বাস তো দূরের কথা রিকশা কিংবা মোটলসাইকেলও যেতে পারছে না। রাস্তায় টায়ার জ্বালিয়ে শ্রমিকরা বিক্ষোভ করছে। অ্যাম্বুলেন্স যেতে দিলেও কয়েক দফায় তাতে তল্লাশি চালাচ্ছে শ্রমিকরা।

বুধবার সকাল থেকেই গাবতলী ও আশেপাশের এলাকায় সতর্ক অবস্থান নিয়েছে র‌্যাব ও পুলিশ। একইসঙ্গে শত শত শ্রমিক রাস্তায় অবস্থান নিয়েছে। ফলে গাবতলী নিয়ে কোনও যানবাহনই রাজধানীর বাইরে যেতে পারছে না।

শ্রমিকের তুলনায় গাবতলীয় এলাকায় আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্য সংখ্যা খুবই কম। টেকনিকাল মোড় থেকে একটু সামনে মীরপুর শাহী মসজিদ ও মাদ্রাসার সামনে অবস্থান নিয়েছে র‌্যাব-৪ এর জনা ২৫ সদস্য। আমিনবাজার ব্রিজের গোড়ায় পুলিশের একটি দল। তারাও সংখ্যায় ২৫ জনের বেশি হবে না। পুলিশ ও র‌্যাবের মাঝখানে শত শত শ্রমিক অবস্থান নিয়েছে। যারা কিছু সময় পরপর পুলিশ ও র‌্যাব সদস্যদের লক্ষ্য করে ইট ছুড়ছে। এসব প্রতিহত করতে র‌্যাব বেশ কয়েক রাউন্ড রাবার বুলেট ও টিয়ার সেল ছুড়েছে। রাস্তার ওপর শ্রমিকদের অবস্থানের কারণে পুলিশের কোনো গাড়ি চলাচল করতে পারছে না। মাঝে মধ্যে পুলিশের রায়ট কার টহল দিচ্ছে। ওই সয়ম শ্রমিকরা রাস্তা ছেড়ে আশেপাশে লুকিয়ে পড়ছে। আবার এসে রাস্তায় অবস্থান নিচ্ছে। এমনকি তারা রায়ট কার লক্ষ্য করেো ইট ছুড়ছে।

মঙ্গলবার রাতে সংঘর্ষের পর অ্যাম্বুলেন্স ও লাশবাহী গাড়িও যেতে দেননি বিক্ষুব্ধ পরিবহন শ্রমিকরা। তারা অ্যাম্বুলেন্সে ভাঙচুর  চালিয়ে।

তবে বুধবার সকালেও গাড়ির জন্য অনেককে অপেক্ষা করতে দেখা গেছে রাস্তায়।
প্রসঙ্গত, মানিকগঞ্জে সড়ক দুর্ঘটনায় চলচ্চিত্র নির্মাতা তারেক মাসুদ ও চিত্রগ্রাহক মিশুক মুনীর নিহতের ঘটনায় দায়ের করা মামলায় জামির হোসেন নামের এক পরিবহন শ্রমিককে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেন আদালত। এছাড়া সাভারের এক দুর্ঘটনার মামলায় মীর হোসেন মীরু নামে আরেক চালককে ফাঁসির আদেশ দিয়েছেন সিএমএম আদালত। এ কারণে  প্রথমে খুলনা বিভাগে বাস ধর্মঘট শুরু হয়। আর মঙ্গলবার থেকে সারাদেশ অনির্দিষ্টকালের জন্য পরিবহন শ্রমিকরা ধর্মঘটের ডাক দিয়েছেন।